1. sm.khakon@gmail.com : admin :
  2. rayhansumon2019@gmail.com : rayhan sumon : rayhan sumon
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৩১ অপরাহ্ন

সবার আগে আমাদের মনুষ্যত্বের শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে

ইমতিয়াজ আহমেদ লিলু
  • সোমবার, ৭ আগস্ট, ২০২৩
  • ৭২১২ বার পড়া হয়েছে
ছবি : লেখক ইমতিয়াজ আহমেদ লিলুর ফাইল ছবি

সুশিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি উন্নতি লাভ করতে পারে না। যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি ততো বেশি উন্নত। শিক্ষা ও মনুষ্যত্ব দুটি আলাদা বিষয়। পৃথিবীতে মানুষ সভ্য হওয়ার একমাত্র সোপান হচ্ছে প্রকৃত শিক্ষা ও মনুষ্যত্ব। একজন মানুষের জ্ঞানের পরিধির প্রসার করতে সবার পূর্বে শিক্ষা প্রয়োজন।

যদি কোন মানুষের মাঝে মানবিকতা বা মানবিক গুণাবলী না থাকে তাহলে সে কোনদিন ও প্রকৃত মানুষ হতে পারবে না। পৃথিবীতে সবার ই টাকার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। কিন্তু সেই অর্থ উপার্জন অবশ্যই হালাল ও সৎ পথে উপার্জন করতে হবে। বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় যার অনেক টাকা আছে তাকেই মানুষ সম্মান করে।

কিন্তু সেই টাকা উপার্জন কি করে হলো তা কেউ জানার আগ্রহ প্রকাশ করে না। কিন্তু একজন গরিব লোক যদি সমাজে সৎ ও হালাল ভাবে উপার্জন করে জীবন যাপন করেন তাকে কেউ সম্মান করতে চায় না। কারণ আমাদের মাঝে সেই শিক্ষা ও মনুষ্যত্ব নেই।

আসলে মানুষকে সম্মান করার শিক্ষাটা পরিবার থেকে ই শিক্ষা নিতে হয়। এজন্য ফ্রান্সের সম্রাট নেপোলিয়ন বোনাপার্ট বলেছিলেন, “তুমি আমাকে শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দিবো”। আমরা হয়তো অনেকেই জানি, একটি শিশুর জীবনে তার মায়ের গুরুত্ব সব থেকে বেশী।

শিশু জন্মের পর থেকে তাকে মানুষ করা পর্যন্ত বাবা থেকে মায়ের ভূমিকা ই বেশী। কিন্তু তাই বলে বাবার অবদান নেই তা বলা যাবে না। বাবারা সব সময় পরিবারের সুখের জন্য অর্থ উপার্জনের সাথে সম্পৃক্ত থাকার কারণে দায়িত্ব ধরণটা একটু ভিন্ন হয়।

এ জন্য কবি বলেছেন, পৃথিবীতে যা কিছু চির কল্যাণকর অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর। কোন মানুষের মাঝে যদি শিক্ষা ও মনুষ্যত্ব না থাকে তাহলে সে প্রকৃত মানুষ হয়ে উঠতে পারবে না।

তাই আমাদের মনুষ্যত্বের শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। তবে ই আমরা দেশ, জাতি ও সমাজের জন্য কল্যাণকর কাজ করে যেতে পারবো। বর্তমান সমাজে অশান্তি ও দাঙ্গা-হাঙ্গামার মূল কারণ হলো আমরা প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত না এবং আমাদের মাঝে কোন ধরনের মনুষ্যত্ব নেই।

মনুষ্যত্বহীন মানুষের কাছ থেকে কখনোও সমাজের উপকার আশা করা যায় না। সে সব সময় তার ব্যক্তি স্বার্থে চিন্তা -ভাবনা করবে। সামগ্রিক কোন চিন্তা তার মাঝে থাকবে না। যদি সে প্রকৃত শিক্ষায় লালিত হয় তাহলে অবশ্যই সে সমাজের কল্যাণের জন্য কাজ করবে।

যিনি নিজের স্বার্থের কথা ভুলে গিয়ে অন্যের উপকারে এগিয়ে আসেন তিনিই প্রকৃত মানুষ। তাই সবার মাঝে যেদিন প্রকৃত শিক্ষা ও মনুষ্যত্ব বিরাজ করবে সেদিন ই সমাজে শান্তির বার্তা বয়ে আনবে।

 

লেখক—

সিনিয়র সহ-সভাপতি 

বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব ।

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
বানিয়াচং মিরর  © ২০২৩, সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD