1. sm.khakon@gmail.com : admin :
  2. rayhansumon2019@gmail.com : rayhan sumon : rayhan sumon
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০২৩ এনালাইসিস :ম্যাচ নং-১৬ নিউজিল্যান্ড-আফগানিস্তান

সৈয়দ সুহেল রানা
  • বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৭৭ বার পড়া হয়েছে

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৪৯ রানের বড় জয় পেয়েছে নিউজিল্যান্ড।টানা চতুর্থ জয়ে পয়েন্ট টেবিলে সবচেয়ে উপরে কিউইরা।

বুধবার (১৮ই অক্টোবর) ভারতের চেন্নাইয়ের এমএ চিদামবরাম স্টেডিয়ামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৪৯ রানের বিশাল জয়ে পয়েন্ট টেবিলে ১ নাম্বারে নিউজিল্যান্ড।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ১ম ওভারেই ০ রানে সৌভাগ্যক্রমে ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যায় ইয়ং।রহমত শাহ স্লিপে ক্যাচটি তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হয়।দলীয় ৩০ রানে ১ম উইকেট হারায় কিউইরা।

দলের সবচেয়ে ইনফর্ম ব্যাটার কনওয়ে ১৮ বলে ২০ রান করে মুজিবের বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়ে ফেরে। ৯ম ওভারে দলীয় অধিনায়ক নিজেই সহজ ক্যাচ ছাড়ে রাচি রাবিন্দ্র’র।

ইয়ং এবং রাবিন্দ্র জীবন পেয়ে দু’জনই দলকে এগিয়ে নেন।রাবিন্দ্র ও ইয়াং এর আউটের পর খানিক ছন্দপতন হয় নিউজিল্যান্ডের! আজমত উল্লাহ’র বলে রাবিন্দ্র ৩২ ও ইয়াং ৫৪ করে ফেরে।দ্রুতই মিচেলকেও ১ রানে ফেয়ার রশিদ খান।

১১০ রানে ৪ উইকেট পড়ে চাপে পতিত হয় কিউইরা।সেখান থেকে দলীয় অধিনায়ক লাথাম ও ফিলিপস ১৪৪ রানের জুটি গড়ে দলকে বিপদ মুক্ত করে। দলীয় ২৫৪ রানে লাথামকে ও ২৫৫ রানে ফিলিপসকে ফেরায় নাভিন। লাথাম ৬৮ ও ফিলিপস ৭১ রান করে।

শেষ দিকে আজমতউল্লাহ’র দুই ওভারে ৩৮ রান সহ শেষ ৩ ওভারে আসে ৪৯ রান।এতে করে নিউজিল্যান্ড নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ২৮৮ রান করে।চাপম্যান ১২ বলে ২৫ রানের ছোট্ট ক্যামিও কার্যকরী ইনিংস খেলে।

২৮৯ রানের টার্গেটে দরকার ছিলো রহমান উল্লাহ গুরবাজ ম্যাজিক! কিন্তু ইনফর্ম গুরবাজ এদিন দলীয় ২৭ রানের মাথায় মাত্র ১১ রান করে হেনরির বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে ফেরে। গুরবাজের মতো করে আরেক ইনফর্ম ওপেনার ইব্রাহিম জাদরানও দ্রুতই ফেরে। দলীয় ২৭ রানের মাথাতেই মাত্র ১৪ রান করে বোল্টের বলে সান্টনারকে ক্যাচ দিয়ে ফেরে জাদরান।

দুই ওপেনারের ব্যর্থতায় আফগানরাও বেশিদূর যেতে পারেনি! নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ৩৪.৪ ওভারের ভিতরেই মাত্র ১৩৯ রানে অলআউট হয়ে ১৪৯ রানের বড় পরাজয় দেখতে হয় আগের ম্যাচেই ইংলিশদের বিপক্ষে রুপকথার গল্পের মতো জয় পাওয়া আফগানদের। আফগানিস্তানের পক্ষে রহমত শাহ ৩৬,অলরাউন্ডার ওমরজাই ২৭ এবং উইকেট কিপার ব্যাটার ইকরাম ১৯ রান করে।

কিউইদের পক্ষে সান্টনার ও ফারগুসন ৩টি করে ও বোল্ট ২টি উইকেট লাভ করে। এছাড়াও রাবিন্দ্র ও হেনরি ১টি করে উইকেট পায়।

৭১ রানের কার্যকরী ইনিংস এবং ৩ ওভার বোলিং করে মাত্র ১৩ রান দেয়ায় অলরাউন্ড নৈপুণ্যের জন্য ম্যাচ সেরা খেলোয়াড়ের স্বীকৃতি পায় গ্ল্যান ফিলিপস।

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
বানিয়াচং মিরর  © ২০২৩, সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD