1. sm.khakon@gmail.com : admin :
  2. rayhansumon2019@gmail.com : rayhan sumon : rayhan sumon
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ১০:২২ অপরাহ্ন

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০২৩ এনালাইসিস : ম্যাচ নং-৯ ইন্ডিয়া বনাম আফগানিস্তান

সৈয়দ সুহেল রানা
  • বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১০৮ বার পড়া হয়েছে

হিউম্যানের ঝড়ো শতকে ভারতের বিপক্ষে উড়ে গেলো আফগানিস্তান। ভারত জিতলো ৮ উইকেট ও ১৫ ওভার হাতে রেখে।

বুধবার (১১ই অক্টোবর) ভারতের দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামে ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় আফগান দলপতি হাসমতউল্লাহ শাহেদি।

১ম ম্যাচের মতোই আফগান ওপেনাররা সাবলীল ভাবে শুরু করে। কিন্তু দলীয় ৩২ রানে ব্যক্তিগত ২২ রান করে জাসপিত ভোমরার শিকারে পরিনত হয় ইব্রাহিম জাদরান।

দলীয় ৬৩ রানে টপ অর্ডারের ৩ ব্যাটারকে হারায় আফগানরা। ডেঞ্জারম্যাবলম গুরবাজ আউট হয় পান্ডিয়ার বলে শদরুল ঠাকুরের অসাধারণ ক্যাচে। পরের ওভারেই ঠাকুর নিজের বলে রহমত শাহকে ফেরায় এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলে।

সেখান থেকে দলকে টেনে তুলে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখায় দলীয় অধিনায়ক শাহেদি ও অলরাউন্ডার ওমরজাই।ভারতের তারকা বোলারদের বিপক্ষে অসাধারণ ব্যাটিংয়ের দু’জনই অর্ধ শতকের দেখা পায়। দলীয় ১৮৪ রানের মাথায় ১২১ রানের অসাধারণ জুটি ভাঙ্গে পান্ডিয়ার বলে ওমরজাই সরাসরি বোল্ড হয়ে ফিরে গেলে।

দলীয় ২২৫ রানে ৫ম উইকেট (দলীয় অধিনায়ক) কে হারায় আফগানরা। এর পরই পথ হারায় আফগানরা!৪২.৪ ওভারের সময় আফগানিস্তানের অধিনায়ক যখন কুলদিপের বলে ফেরে তখনও ইনিংসের ৪৪ বল বাকি ছিলো।

সেখান থেকে রশীদ-নবীরা তুলতে পারে মাত্র ৪৭ রান। এর মূল কৃতিত্ব কুলদীপের কিপটে বোলিং এবং ভোমরার এগ্রেসিভ এপ্রোচ। ভোমরা ১০ ওভারে ৩৯ রানে ৪টি উইকেট লাভ করে।

পান্ডিয়া পায় ২টি উইকেট। এদিন যদিও খুবই খরুচে বোলিং করে সিরাজ! ৯ ওভারে ৭৬ রান দিয়ে সিরাজ থাকে উইকেট শুন্য।

দিল্লিতে আগের ম্যাচেই রেকর্ড ৭৫৪ রান ওঠে শ্রীলঙ্কা বনাম আফ্রিকার ম্যাচে। সে হিসেবে ভারতীয় বিখ্যাত ব্যাটিং লাইনআপের সামনে ২৭৩ রানের টার্গেট মামলি হলেও আফগান সমর্থকরা হয়তো ভেবেছিলো রশীদ-মুজিবদের বিপক্ষে ভারত নাও জিততে পারে!

কিন্তু ভারতের বিপক্ষে বোলিংয়ে আফগানদের পাওয়ার আসলে শুরুর দুই ওভারে মাত্র ৭ রান আসে। এর পর থেকেই শুরু হয় হিট ম্যান রোহিত শর্মা শো! অন্য প্রান্তে ইশান ছিলো সাবধানী!

আফগান বোলারদের তুলোধুনো করে রোহিত তুলে নেয় তার ৩১তম শতক।মাত্র ৬৩ বলে অসাধারণ এই শতকটি হাকায় রোহিত। ওপনার হিসেবে ২৯টি শতক নিয়ে সর্বোচ্চ শতকে রোহিত এখন দ্বিতীয় স্থানে। ১ম স্থানে থাকা শচীনের ৪৫টি শতক অবশ্য ধরাছোঁয়ার বাহিরেই রয়েছে!

একপেশে ম্যাচে ১৮.৪ ওভারের সময় দলীয় ১৫৬ রানে ১ম উইকেট হারায় ভারত।ইশান ৪৭ রান করে রশীদের বলে ইব্রাহিম জাদরানের তালুবন্দি হয়ে ফেরে।

দলীয় ২০৫ রানে রশিদের ২য় শিকারে পরিনত হয়ে সরাসরি বোল্ড হয়ে ফিরে হিট ম্যান (রোহিত)। ফেরার আগে মাত্র ৮৪ বলে ১৬টি চার ও ৫টি ছয়ে ১৩১ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে ভারত অধিনায়ক।

এবারের বিশ্বকাপে যেন শতক হওয়ার মহোৎসব চলছে! ৯ম ম্যাচে এসেই শতকের সংখ্যা এখন ১১টি! বিশ্বকাপের টোটাল ৪৮ ম্যাচ শেষে সংখ্যাটি কোথায় থামে সেটাই দেখার অপেক্ষা!!

আর কোন উইকেট না হারিয়ে ভারত জিতে যায় ৯০ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখে। আধুনিক ক্রিকেটের স্টাইলিশ ও সময়ের সেরা ক্রিকেটার কোহলি অপরাজিত থাকে ৫৫* রানে এবং আইয়ার অপরাজিত থাকে ২৫* রানে। আফগানিস্তানের পক্ষে রশীদ একমাত্র বোলার হিসেবে উইকেটের দেখা পায়।রশিদ ৮ ওভারে ৫৭ রানের বিনিময়ে দু’টি উইকেট পায়।

ভোমরার অসাধারণ বোলিং(১০-০-৩৯-৪) পারফরম্যান্স ডিঙ্গিয়ে ১৩১ রানের বিধ্বংসী ইনিংসের জন্য ম্যাচ সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয় রোহিত শর্মা।

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
বানিয়াচং মিরর  © ২০২৩, সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD